প্রফেসর ড. এ. কে. এম. জাকির হোসেনঃকুড়িগ্রাম জেলা বাংলাদেশে পিছিয়ে পড়া জনপদগুলোর অন্যতম। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী ৭০.৮ শতাংশ দরিদ্র মানুষ নিয়ে দেশে দারিদ্র্যের শীর্ষে অবস্থান করছে কুড়িগ্রাম জেলা। এক সময়ের মঙ্গাপীড়িত এই জেলাটির 'মঙ্গা কলঙ্ক' ঘুচে গেলেও দারিদ্র এখনও কাটেনি। স্বাধীনতার পরও প্রায় প্রতি বছরই মঙ্গাপীড়িত হয়ে এক বেলা, আধবেলা খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাতে হয়েছে এই জেলার অসংখ্য মানুষকে। তবে বর্তমান সরকারের নানামুখী প্রচেষ্টা ও উদ্যোগের ফলে বিগত এক দশকে এই জেলার আর্থ সামাজিক অবস্থার অনেক পরিবর্তন হয়েছে। তারপরও দারিদ্র্যের সঙ্গে কুড়িগ্রামবাসীর লড়াই এখনও থামেনি। নদী ভাঙ্গন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, বন্যা, শিল্পায়ন, অর্থনৈতিক অঞ্চল ও উচ্চ শিক্ষার কোন বিদ্যাপীঠ গড়ে না উঠাকেই এ অঞ্চলের মানুষজন অন্যতম কারণ হিসেবে মনে করে।

আবুল বাশার মিরাজ:বর্তমানে কৃষি খাতে সাধিত হয়েছে অকল্পনীয় উন্নতি। শুধু ফসলের মাঠে নয়- সব ক্ষেত্রেই এমনকি ছাদ কৃষিতে ব্যাপক আগ্রহ ও সাফল্য অর্জন করেছে। আর এ সাফল্য এসেছে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের সুদক্ষ নের্তেত্বের কারণে। মাননীয় কৃষিমন্ত্রী একজন কৃষিবিদ, কৃষি গবেষক ও কৃষিতে উচ্চশিক্ষিত হওয়ায় এ কাজটি করা তার পক্ষে আরো সহজ হয়েছে। কৃষির কোন জায়গায় গুরুত্বআরোপ করা দরকার, সে জায়গাটিতেই তিনি গুরুত্ব দিয়েছেন কারণ কৃষির এ বিষয়টি তিনি জানেন, বোঝেন।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটে (ব্রি) “আধুনিক ধান উৎপাদন প্রযুক্তি” বিষয়ে দুইমাসব্যাপী প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন হয়েছে শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর ২০২২)। ব্রির মহাপরিচালক ড. মো: শাহজাহান কবীর প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে এ প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন করেন।

কৃষিবিদ ড. এম. এ. আউয়াল:হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাজ্ঞালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যন্নয়নের জন্য স্বপ্ন দেখেছিলেন কৃষিকে ঘিরে। তিনি বলেছিলেন, ”কৃষিই হবে বাংলাদেশের উন্নয়নের একমাত্র হাতিয়ার”। তাই স্বাধীনতার পর কৃষির উন্নয়নের জন্য নানামুখী উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহন করেন এবং দেশের প্রতি ইঞ্চি জমির সঠিক ব্যবহারের জন্য দেশের মানুষের প্রতি আহবান জানান। শুরু হয় কৃষিতে সবুজ বিপ্লবের। গড়ে উঠে কৃষির বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান এবং আবিস্কার হতে থাকে ফসলের নুতন নুতন উন্নত জাতের। সমুদ্রের মৎস্য আহরণের জন্য উদ্যোগ গ্রহন করেন। অস্ট্রেলিয়া থেকে আনা হয় গরুর উন্নত জাত। এভাবেই বঙ্গবন্ধু বাংলার মানুষকে নিয়ে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেন।

খসরু মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন সিকৃবি থেকে:সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) টিলাঘেরা সবুজ ক্যাম্পাসে ২ একর জায়গা নিয়ে স্থাপন করা হয়েছে চা, কফিসহ বিভিন্ন পানীয় ফসলের জার্ম প্লাজম সেন্টার। পানীয় ফসলের এই বাগানে আরো রয়েছে লেমন গ্রাস, তুলসি ও কাজু বাদাম। এন্টি অক্সিডেন্ট উপাদান থাকায় চায়ের ওষধি গুণ সর্বজন সমাদৃত। গত তিন বছর ধরে বাংলাদেশের অন্যতম এই অর্থকরী ফসলের চাষ ও গবেষণা চলছে এই জার্ম প্লাজম সেন্টারে। চা গাছের ছায়ার জন্য ব্যবহৃত ছায়াগাছের গোড়ায় গোড়ায় লাগানো হয়েছে গোলমরিচ ও খুলনা অঞ্চলের বিখ্যাত চুই ঝাল গাছ।

Dr. F H Ansarey:Global Positioning System or GPS is a vital component of today’s Precision Farming. GPS enables farmers to fill the yield gap across the farmlands by effectively using data for yield mapping and field planning. With accurate navigation using GPS, farmers can collect location-specific soil samples and monitor crop conditions over a longer period of time.