ইসলামিক ডেস্ক:যে পথ প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দেখিয়েছেন সে পথেই সবাইকে চলার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ঢাদসিক) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

ইসলামিক ডেস্ক:ইসলামের নামে ফেৎনা-বিভেদ সৃষ্টিকারীদের রুখে দাঁড়ানোর উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

ইসলামিক ডেস্ক:ধর্মপ্রতিমন্ত্রী মো: ফরিদুল হক খান বলেছেন, প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ছিলেন বিশ্বশান্তি, মানবতা ও কল্যাণের পথ প্রদর্শক। তিনি  বঞ্চিত, নিপীড়িত ও লাঞ্ছিত মানবতার আশ্রয়স্থলে পরিণত হয়েছিলেন। তিনি বলেন, পৃথিবীতে শান্তি খুঁজে পেতে রাসুলুল্লাহ (সা.) এর দেখানো আদর্শ অনুসরণ করতে হবে। আল্লাহ তায়ালা তাঁকে সারা বিশ্ব জগতের জন্য রহমত হিসেবে প্রেরণ করেছেন।

ইসলামিক ডেস্ক:ইসলাম পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য বিশেষ তাগিদ দিয়েছে। আল্লাহর নবী বেশি বেশি বৃক্ষরোপণের কথা বলেছেন। কেননা, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। এজন্য বিনা প্রয়োজনে বৃক্ষ নিধন বা বৃক্ষের পাতা পর্যন্ত ছিঁড়তে মহানবী (স) নিষেধ করেছেন। তিনি যুদ্ধ কালীন সময়েও বৃক্ষ কর্ত্তন ও ফসল বিনষ্ট থেকে বিরত থাকার জন্য কঠোরভাবে নিষেধ করেছেন। জনৈক ব্যক্তি একটি গাছের পাতা ছিঁড়লে রাসূল (স) বলেন “প্রত্যেকটি পাতা আল্লাহর মহিমা ঘোষণা করে”। কাজেই পাতা ছিঁড়বে না। গাছ-পালা বায়ু দূষণ রোধ করে। বায়ু থেকে দূষিত গ্যাস শোষণ করে পরিবেশকে নির্মল রাখে। বায়ু যাতে দূষিত না হয় সেদিকে আমাদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

ইসলামিক ডেস্ক:আগামী ২০ অক্টোবর পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা) পালিত হবে। বৃহস্পতিবার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

ইসলামিক ডেস্ক:শিক্ষক মাত্রই বিশেষ মর্যাদা ও সম্মানের অধিকারী। মহান আল্লাহ তায়ালাও শিক্ষকদের আলাদা মর্যাদা ও সম্মান দান করেছেন। শিক্ষকরা হলেন জাতির বতিঘর। যাদের দেয়া শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে একজন শিক্ষার্থী তার ব্যক্তিগত ও কর্মময় জীবনকে আলোকিত করে। পাশাপাশি পরিবার-সমাজ-রাষ্ট্র তার দ্বারা উপকৃত হয়। শিক্ষকদের সম্মানের দৃষ্টিতে দেখার ঐতিহ্য ও রীতি আমাদের সমাজে বেশ প্রাচীন।