রাজধানী প্রতিনিধি:হজ্জ প্রতিটি মুসলিমের উপর ফরজ একটি ইবাদাত। প্রকৃত অর্থেই যদি কেউ হজ্জ পালন করতে চাই তাহলে মহান আল্লাহতায়ালা তা কবুল করে নেন। হজ্জ পালনকালীন সময়ে বেশি বেশি ইবাদাতে মশগুল থাকার জন্য গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি।

ইসলামিক ডেস্ক:মানবজীবন একটি মহাসফর। জন্মগ্রহণের মাধ্যমে আমাদের দুনিয়ার জীবন শুরু হয়। এরপর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে দুনিয়ার জীবন শেষ হয়ে আরেকটি জীবন শুরু হয় যা কিয়ামত পর্যন্ত চলবে। এটি হলো বারজাখ জীবন বা অন্তর্বর্তীকালীন সময়, আখিরাত তার চূড়ান্ত গন্তব্য। পরকাল হলো চিরস্থায়ী। তাই মুমিন বা বিশ্বাসীদের জীবনে হারানোর কিছু নেই, হারানোর ভয়ও নেই, হতাশাও নেই। প্রয়োজন শুধু প্রতিটি ধাপে, প্রতিটি পর্যায়ে সব অবস্থায় যথাযথ কর্মটি সম্পাদন করা। যা সব মানুষের কল্যাণে নিবেদিত হবে।

ইসলামিক ডেস্ক:বিপদে আপদে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানো একটি উত্তম ইবাদত। সারা বিশ্বেই এখন একটা সংকটের মধ্যে চলছে। অসহায় গরিব মানুষ থেকে শুরু করে নিম্ন মধ্যবিত্ত সকলেই জীবন যাপনে হিমশিম খেয়ে যাচ্ছে। এ সময়  সামর্থ্যবান ও বিত্তবানরা অসহায়দের সাহায্য করবে ইসলাম সেই শিক্ষাই দেয়।

ইসলামিক ডেস্ক: কয়েকদিন থেকে রাজধানী ঢাকা সহ অনেক জেলায় এক টানা গরমে অতীষ্ঠ হয়ে চলেছে জনজীবন। এসময় হালকা একটু বৃষ্টি হলে মানুষের কষ্ট লাঘব হতো। কিন্তু বৃষ্টির দেখা মিলছে না। আমরা মহান রাব্বুল আলামিনের অপার নিয়ামত ও রহমতের উপরই বেঁচে আছি। বৃষ্টিও ঠিক আল্লাহ তায়ালার অন্যতম নিয়ামত। আর আকাশ থেকে বৃষ্টি বর্ষণের সাথে আল্লাহ অনেক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে থাকেন। এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমাদের রিজিক উৎপন্ন বা বন্টন হয়ে থাকে। মূলত আল্লাহর হুকুম ব্যতীত এই বৃষ্টি বর্ষিত হয় না।

ইসলামিক ডেস্ক:মুসলিমরা পরস্পরে সাক্ষাৎ হলে একে-অপরকে সালাম দেবে- এটাই তো উত্তম আদর্শ। এরচেয়ে উত্তম আর কোনো অভিবাদন হতে পারে না। আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহি ওয়া বারকাতুহ। সালামের অর্থের দিকে তাকালেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যায়। সালামের অর্থই হলো আপনাদের প্রতি বর্ষিত হোক সালাম ও শান্তি এবং বর্ষিত হোক আল্লাহর রহমত ও বরকত। সালামের মাধ্যমে পরস্পরের জন্য দুনিয়া ও আখেরাতের যাবতীয় কল্যাণের দুআ করা হয়।

ইসলামিক ডেস্ক:হিজরি সনের দশম মাস হলো শাওয়াল মাস। এ মাসের প্রথম দিনে আমরা ঈদুল ফিতর উদযাপন করলাম। উৎসব আনন্দে মাতোয়ারা হয়ে আমরা যেন রমজানের মহৎ শিক্ষাটা ভুলে না যাই সে জন্যই রাসুলে করিম (সা.) এ মাসে ছয়টি নফল রোজা রাখতে উম্মতকে উৎসাহিত করেছেন।