ইসলামিক ডেস্ক:হিজরি বছরের প্রথম মাস হলো মহররম। হিজরি সন মুসলমানদের জন্য নানা কারণে গুরুত্বপূর্ণ। ইসলামের সব বিধান প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে এর সঙ্গে জড়িত। আর এ মাস যেহেতু হিজরির সূচনা মাস। তাই এই মাসটি নতুন বছরে বিগত বছরের ত্রুটি কাটিয়ে নতুন প্রত্যয়ে নিজেদের জীবন পরিচালনার জন্য মাইলফলক। আরো বিভিন্ন দিক বিবেচনায় এ মাসটি আমাদের জন্য প্রাসঙ্গিক। এ মাসেরই দশম তারিখকে বলা হয় ‘আশুরা দিবস’।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:বাংলাদেশের আকাশে গতকাল (৯ আগস্ট) কোথাও ১৪৪৩ হিজরি সনের পবিত্র মুহাররম মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে আজ ১০ আগস্ট মঙ্গলবার পবিত্র জিলহজ্জ মাস ৩০ দিন পূর্ণ হবে এবং আগামী ১১ আগস্ট বুধবার থেকে পবিত্র মুহাররম মাস গণনা করা হবে। প্রেক্ষিতে আগামী ২০ আগস্ট শুক্রবার পবিত্র আশুরা পালিত হবে।

ইসলামিক ডেস্ক:ঈদুল আযহা কেবল পশু কোরবানি করা এবং আত্মীয় স্বজন, বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে আনন্দ ও গোশত খাওয়াকে বুঝায় না বরং ঈদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, আত্মোৎসর্গ, নিজের ভেতরে থাকা পশুত্বের মূলতপাটন এবং একমাত্র রবের সন্তুষ্টি। প্রতি বছর ঈদুল আজহা ও কোরবানি এসে আমাদের যে শিক্ষা দিয়ে যায়, আমরা তা সঠিকভাবে প্রতিপালন করতে পারলে সারাটি বছর ইসলামের ওপর অটল-অবিচল থাকা সহজ হবে।

ইসলামিক ডেস্ক:কুরবানি পশু জবেহ করার জন্য রয়েছে সুস্পষ্ট দিকনির্দেশনা। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর নিজের কুরবানির পশু তাঁর নিজ হাতে জবাই করেছেন। যার যার কুরবানির পশু তাদের নিজ হাতে জবাই করার কথাও এসেছে হাদিসে। কুরবানির পশু জবাইয়ের রয়েছে নিয়ম-পদ্ধতি ও দোয়া।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম: আগামী ১০ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিজরী ২১ জুলাই, ২০২১ খ্রি. বুধবার সারাদেশে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে, ইনশাল্লাহ। পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে ৫টি ঈদের নামাযের জামাআত অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত জামাআতসমূহে নিম্নোক্ত আলেমগণ; ইমাম ও মুকাব্বির-এর দায়িত্ব পালন করবেন। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ইসলামিক ডেস্ক:যে বৃক্ষ আমার এত এত উপকার করে, বিনা প্রয়োজনে আমরা যেন তা না কাটি। এটি যেমন এ নিআমতের না-শুকরি হবে তেমনি নিজের ক্ষতি ডেকে আনা হবে। কারণ, বৃক্ষ যত কমতে থাকবে পৃথিবীর তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে। খরা, অনাবৃষ্টি দেখা দেবে। পৃথিবীর আবাদী অনাবাদীতে পরিণত হবে। মানুষসহ পশু-পাখি বিপর্যয়ের সম্মুখীন হবে। সুতরাং বিনা প্রয়োজনে আমরা গাছ কাটব না।