ইসলামিক ডেস্ক:লেখাপড়া, চাকরি-বাকরি, ব্যবসা-বাণিজ্য, খেলাধুলা সবকিছুতেই মানুষ সফল হতে চায়। তবে পেশায় সফল হলেই যে সে প্রকৃত সফল হয় তা কিন্তু নয় বরং প্রকৃত সকল ব্যক্তি তিনি যিনি নিজের জীবনে আত্মশুদ্ধি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। প্রকৃত সফল ব্যক্তি সম্পর্কে কুরআনুল কারিমে মহান আল্লাহ তাআলা তা সুস্পষ্ট ভাষায় ঘোষণা করেছেন। তাহলো-

ইসলামিক ডেস্ক:মানুষ সামাজিক জীব তাকে সমাজে চলতে গেলে নানান ধরনের মানুষের সাথে উঠাবসা করতে হয়। মানুষের সাথে ভালোভাবে না বুঝলে তাকে চেনা বড় দায়। আবার অনেকের সাথে বসলেও তাকে সঠিকভাবে চেনার অবকাশ থাকে না। কেউ আল্লাহর দেয়া নিয়ামতের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সহজ সরল জীবন বেছে নেয়। কেউ বা জীবনকে অকারণে জটিল করে। কেউ বা দেখতে পরহেজগার কিন্তু আমলে শূন্য। আবার অনেকের পোশাকি সৌন্দর্য না থাকলেও সে সাচ্চা মুসলমান। অনেকে নিজের উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য মানুষকে ধোঁকা দেয়। মানুষের সহানুভূতি লাভের চেষ্টা করে। সবসময় মানুষের বাইরের অবয়ব দেখে ভালো-মন্দ নির্ণয় করা যায় না। এ জন্য ব্যক্তির কর্ম ও জীবনাচরণকে ভালো করে পর্যবেক্ষণ করতে হয়।

ইসলামিক ডেস্ক: মানবজীবনের সব দিকনির্দেশনা দিয়েছে ইসলাম। মহান আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে প্রেরিত এ নির্দেশনা অনুযায়ী জীবন পরিচালনা করলে মানবজাতি যে তার কাক্সিক্ষত পথ খুঁজে পাবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।  এসব নির্দেশনার বাস্তব প্রয়োগ শিখিয়েছেন রাসূলুল্লাহ সা:। এই বিস্ময়কর মহানাদর্শের সৌন্দর্য সম্পর্কে জানার চেষ্টা করা চিন্তাশীল মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ইসলামিক ডেস্ক:আমরা যখন সম্পদের আয়-ব্যয়ের হিসাব করি তখন কোন্ পথে আয় করছি হিসাব করাও জরুরি। মুসলিম শরীফের এক হাদীসে ইরশাদ হয়েছে, যার উপার্জন হারাম আল্লাহ পাক তার দুআ কবুল করেন না (মুসনাদে আহমাদ: ১০১৫) । অন্য এক হাদীসে নবীজি (সা.) ঘোষণা দিয়েছেন, ‘ওজু ছাড়া নামাজ কবুল হয় না; আর আত্মসাতের (অর্থাৎ অবৈধভাবে উপার্জিত) সম্পদের ছদকাও কবুল হয় না।’ (সহিহ মুসলিম: ২২৪) । হারাম উপার্জনের অর্থ রেখে মারা গেলেও সে সম্পদ হবে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তির পূঁজি।

ইসলামিক ডেস্ক:প্রয়োজনের অতিরিক্ত কথা বলা অনেক সময় একজন মানুষের জন্য অকল্যাণ বয়ে আনে। মানুষের বাকশক্তির অপব্যবহার পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে বিপর্যয়ের কারণ হতে পারে। তাই কথা বলার ক্ষেত্রে সতর্ক ও সংযমী হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেছে ইসলাম। মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) মুখের হেফাজত ও কথাবার্তায় সংযমী হওয়ার ব্যাপারে বেশ গুরুত্ব প্রদান করেছেন। তিনি নিজেও এ ব্যাপারে বেশ সতর্ক থাকতেন।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:মানবসমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে ভ্রাতৃত্ববোধএকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেটা হোক পরিবারে সমাজে কিংবা যে কোন জায়গায় হোক ভ্রাতৃত্বের বন্ধন মানবজাতিকে ঐক্যের আসনে প্রতিষ্ঠিত করে। ভ্রাতৃত্ববোধের মাধ্যমে সমাজে সৌহার্দ্য-সম্প্রীতি ভালোবাসা বৃদ্ধি পায়। মানুষ বিপদে আপদে একে অপরকে সাহায্যে এগিয়ে আসে আর মানবতার ধর্ম ইসলাম সর্বস্তরে ভ্রাতৃত্ববোধ উন্নয়নে গুরুত্ব দিয়েছে।