এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:২০২১-২২ অর্থবছরে কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধকালে ২৪ হাজার ৯৫৩ টি জেলা পরিবারের জন্য ৯৯৮ দশমিক ১২ মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ করেছে সরকার। সরকারের মানবিক খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় কাপ্তাই হ্রদ তীরবর্তী রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলার ১০টি উপজেলার জেলেদের জন্য এ বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। এর আওতায় প্রতিটি জেলে পরিবারকে মাসিক ২০ কেজি হারে মে-জুন দুই মাসের জন্য মোট ৪০ কেজি ভিজিএফের চাল প্রদান করা হবে।

কৃষিবিদ দীন মোহাম্মদ দীনু:বাউ ধান-৩ বোরো মৌসুমের আগাম জাতের উচ্চফলনশীল ধানের একটি নতুন জাত। এজাতের ধান পাকা অবস্থায় শীষ থেকে ঝড়ে পড়ে না। জাতটি বোরো মৌসমের জনপ্রিয় ও প্রচলিত ব্রি ধান২৮ এর মত আগাম এবং সমসাময়িক।

আজ ২৮ এপ্রিল দুপুরে বোরো বীজ ধান (বাউ ধান-৩) এর শস্য কর্তন -২০২২’ উপলক্ষে  আয়োজিত মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে বাংলদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কতৃক উদ্ভাবিত বোরো ধানের উচ্চ ফলনশীল জাত ‘বোরো বীজ ধান (বাউ ধান-৩) এর শস্য কর্তন -২০২২’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাউ ধান-৩ এর উদ্ভাবক বাংলদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যায়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, এ ধানের ফলন প্রচলিত ব্রি ধান ২৮ এর চেয়ে বেশি। প্রতি হেক্টর এ ফলন ৭-৮ টন। এ ধানটি মোটামুটি প্রধান প্রধান রোগ  প্রতিরোধে সক্ষম। ১০০০ টি পুষ্ট ধানের ওজন ২৫ গ্রাম এ জাতের জীবনকাল ১৪০-১৪৫ দিন যা ব্রি ধান২৮ চেয়ে ৩-৫ দিন বেশি । তিনি আরও বলেন, এ ধানে চিটা কম। সেহেতু এ জাতটি বোরো মৌসুমে প্রচলিত ও জনপ্রিয় জাত ব্রি ধান২৮ এর বিকল্প ও পরিপুরক হিসেবে নির্বাচন করা যাবে। বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার চাপ সামলাতে বর্ধিত খাদ্য শস্যোর চাহিদার ফলে ফসলের উৎপাদন বাড়ানোর কোন বিকল্প নাই বলেন ড. লুৎফুল হাসান ।

বাকৃবি খামার ব্যবস্থাপনা শাখার আয়োজনে বৃহস্পতিবার দুপুরে বোরো বীজ ধান (বাউ ধান-৩)-এর শস্য কর্তন -২০২২’ অনুষ্ঠানে প্রধান খামার তত্ত্বাবধায়ক প্রফেসর ড. মোঃ রমিজ উদ্দিন-এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুড়িগ্রাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের নব নিযুক্ত ভাইস-চ্যান্সেলর ও ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা প্রফেসর ড. একেএম জাকির হোসেন, বাউরেস এর পরিচালক প্রফেসর ড. আবু হাদী নূর আলী খান।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন,প্রোক্টর প্রফেসর ড.মুহাম্মদ মহির উদ্দীন, প্রফেসর ড.মো. আবদুস সালাম, উপ-প্রধান খামার তত্ত্বাবধায়ক কৃষিবিদ মো. জিয়াউর রহমান, ক্রীড়া প্রশিক্ষণ বিভাগের পরিচালক ড.আবুল কালাম আজাদ, জনসংযোগ ও প্রকাশনা দফতরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ দীন মোহাম্মদ দীনু প্রমুখ।

 

ড. ছাদেকা হক এবং শারমিন সাইদ প্রিয়াংকা:হাফিজ ও সুমনা প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭:০০ টায় বাড়ি ফেরে। সারাদিনের কর্মব্যস্ততা শেষে বাড়ি ফিরে কোন রকমে কাপড় বদলেই হাফিজ বিছানায় শরীর এলিয়ে দেয়। সুমনারও ইচ্ছে হয়, কিন্তু সে সুযোগ তার থাকে না। চাকরি করে সংসার সামলানোকে রীতিমতো একটা যুদ্ধ মনে হয় তার কাছে। বাসায় এসে নিজের রুমে না গিয়ে তার রান্নাঘরে ঢুকতে হয়, রাতের খাবার তৈরি করার জন্য। হাফিজটা যদি একটু তাকে সঙ্গ দিতো তাহলে হয়ত কাজগুলো তাড়াতাড়িই শেষ করা যেত। কিন্তু, হাফিজ একদমই ঘরের কাজে সাহায্য করতে চায় না, এমনকি নিজের কাজটাও সে নিজে করে না।

সমীরন বিশ্বাস:স্ট্রোক মূলত মানুষের মস্তিষ্কে আঘাত হানে। ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, মস্তিষ্কের কোন অংশে রক্ত সরবরাহ বন্ধ হয়ে মস্তিষ্কের কোষগুলো মরে গেলে স্ট্রোক হয়। সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য শরীরের প্রতিটি কোষে রক্ত সঞ্চালন প্রয়োজন। কারণ এই রক্তের মাধ্যমেই শরীরের কোষে কোষে অক্সিজেন পৌঁছায়। যদি একজন স্ট্রোকের শিকার রোগীকে স্ট্রোক হবার তিন ঘন্টার মধ্যে হাসপাতালে নেওয়া যায়, তবে তাকে সম্পূর্ণভাবে সুস্থ অবস্থায় ফেরত পাওয়া সম্ভব।

Md. Ataur Rahman:The present world population of 7.3 billion people is expected to increase to 9.7 billion by 2050. Global food consumption is increasing due to rapid population increase. Furthermore, contemporary challenges to global food security include global climate change, environmental degradation, drought, new illnesses, and saline soils. We need to move beyond conventional and molecular plant breeding to reduce the negative impacts of these many agricultural productivity restrictions and improve crop yield and stress tolerance in plants.

কৃষিবিদ ড. এম. মনির উদ্দিন:প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক অপার লীলাভুমি যার নাম দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলংকা। ১৯৪৮ সালে স্বাধীন হওয়ার পর দেশটি দীর্ঘ ২৬ বছরের গ্রহযুদ্ধে পড়েও দক্ষিন এশিযার মধ্যে অনেকটাই এগিয়ে যাচ্ছিল। দক্ষিন এশিয়ার মধ্যে শ্রীলংকার শিক্ষার হার সর্ব্বোচ ৯২.৩৯ শতাংশ। দেশটির মোট জনসংখ্যা ২১ মিলিয়ন এবং মাথাপিছু আয় একসময় বেড়ে দাড়ায় ৩ হাজার ৮১৯ ডলার যা ছিল দক্ষিন এশিয়ার মধ্যে সর্ব্বোচ্চ।