এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বাংলাদেশ সরকার পরিবেশ রক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বাংলাদেশ খুবই দুর্যোগপ্রবণ দেশ। নানান প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে প্রায়ই ফসলের ক্ষতি হয়। এ অবস্থায়, কৃষি উৎপাদন ধরে রাখতে হলে জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে চলার বা অভিযোজনের সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে জলাবদ্ধতা, লবণাক্ততা, খরা প্রভৃতি বাড়বে। এসব বিরূপ পরিবেশে চাষযোগ্য ফসলের জাত উদ্ভাবন ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, এখন মাঠে বড় ধরনের কোন ফসল নেই। তারপরও, চলমান বন্যায় সুনামগঞ্জে ও সিলেটে ২২ হাজার হেক্টর জমির আউশ ধান আক্রান্ত হয়েছে। এখন বন্যা কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নীলফামারী, মৌলভীবাজারসহ অনেক জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে্। এতে এখন পর্যন্ত সারা দেশে প্রায় ৫৬ হাজার হেক্টর জমির আউশ ধান আক্রান্ত হয়েছে। এছাড়া শাকসবজি, তিল, বাদাম প্রভৃতি ফসলের ক্ষতি হয়েছে। বন্যা দীর্ঘস্থায়ী না হলে এখন পর্যন্ত যতটুকু ক্ষতি হয়েছে, সেটা পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব। সেজন্য ইতোমধ্যে ব্যাপক প্রস্তুতিও শুরু করা হয়েছে।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, 'বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কৃষিবিদদের নানা উদ্ভাবন ও কৃষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে শুধু পৃথিবীকে নয়, বিশ্ব খাদ্য সংস্থাকেও অবাক করে দিয়ে বাংলাদেশ খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে। এই নিরাপত্তা অক্ষুন্ন রাখতে দেশে কৃষিজমি রক্ষা একান্ত প্রয়োজন।'

আবুল বাশার মিরাজ, বিশেষ প্রতিনিধি:বাংলাদেশে এই মুহুর্তে কোন খাদ্য সংকট নেই বলে মন্তব্য করেছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি। বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে খাদ্য নিরাপত্তায় কৃষি ও গণমাধ্যম শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।  তিনি বলেন, খাদ্য সংকটের কারণে যুদ্ধ হয়, রাজনৈতিক অস্থিশীলতা হয়। কিন্তু আমাদের দেশে কৃষি উৎপাদনে এই ধরণের কোন সমস্যা হবে না। কারণ বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা কৃষিতে অত্যাধিক গুরুত্ব দিয়েছেন।

Staff correspondent: Fish is one of the protein sources that is making a significant contribution in solving the global food crisis. As the world's population continues to grow, so does the demand for fresh, safe, and affordable sources of animal protein. As the need for seafood is ever-growing, simultaneously, the demand for high-quality fish feed and premix/additives for aquaculture has grown. The feed producers, shrimp, and fish farmers looking for sustainable solutions to help them run healthy and profitable businesses.

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:রাজধানীর খামারবাড়িতে অনুষ্ঠিত জাতীয় ফল মেলা ২০২২ এর সময় দু’দিন বাড়ানো হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে শনিবার (১৮ জুন) সমাপনী অনুষ্ঠান হলেও গত দুইদিন বৈরী আবহাওয়ার কারনে দু’দিন সময় বাড়িছে মেলা কর্তৃপক্ষ। সে হিসেবে সোমবার মেলার শেষ দিন। এবারের মেলায় তৃতীয় দিন শেষে প্রায় ৮৫ লাখ টাকার ফল বিক্রি হয়। যা গতবার (২০১৯) এর চেয়ে ৫লাখ টাকা বেশি। রাজধানীর ফার্মগেটস্থ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) থ্রি-ডি হলে সমাপনী অনুষ্ঠানে মেলায় অংশগ্রহণকারীদের পুরষ্কার প্রদান করে কৃষি মন্ত্রণালয়।