Md. Ataur Rahman:The present world population of 7.3 billion people is expected to increase to 9.7 billion by 2050. Global food consumption is increasing due to rapid population increase. Furthermore, contemporary challenges to global food security include global climate change, environmental degradation, drought, new illnesses, and saline soils. We need to move beyond conventional and molecular plant breeding to reduce the negative impacts of these many agricultural productivity restrictions and improve crop yield and stress tolerance in plants.

কৃষিবিদ ড. এম. মনির উদ্দিন:প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক অপার লীলাভুমি যার নাম দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলংকা। ১৯৪৮ সালে স্বাধীন হওয়ার পর দেশটি দীর্ঘ ২৬ বছরের গ্রহযুদ্ধে পড়েও দক্ষিন এশিযার মধ্যে অনেকটাই এগিয়ে যাচ্ছিল। দক্ষিন এশিয়ার মধ্যে শ্রীলংকার শিক্ষার হার সর্ব্বোচ ৯২.৩৯ শতাংশ। দেশটির মোট জনসংখ্যা ২১ মিলিয়ন এবং মাথাপিছু আয় একসময় বেড়ে দাড়ায় ৩ হাজার ৮১৯ ডলার যা ছিল দক্ষিন এশিয়ার মধ্যে সর্ব্বোচ্চ।

ড. জগৎ চাঁদ মালাকার:বাংলাদেশ পৃথিবীর কৃষি প্রধান নদীমাতৃক একটি দেশ। অর্থনীতির এখনও প্রাণশক্তি কৃষি। আমাদের রয়েছে ৪৫ লাখ হেক্টরের বেশি জলসীমা। গোপালগঞ্জ, বরিশাল, পিরোজপুর, সাতক্ষীরা, চাঁদপুর, কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ জেলাসহ আরও অনেক জেলা বর্ষা মৌসুমে বিরাট অংশ জলাবদ্ধ থাকে। সেখানে বছরে প্রায় ৬ মাস পানিতে নিমজ্জিত থাকে। এ সময়ে সেখানে কোনো কৃষি কাজ থাকে না, ফসল হয় না, মানুষ বেকার জীবন-যাপন করেন। ওই সব এলাকায় ওই সময়ে কচুরিপানা ও অন্যান্য জলজ আগাছায় ঢাকা থাকে।

মো.শহিদুল্লাহ্:দক্ষিন এশিয়ার সম্ভাবনাময় দেশ শ্রীলংকা আজ খাদ্য জ্বালানীর সংকটসহ নিদারুণ অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে পতিত হয়েছে। দেশটির নানাবিধ সংকটের মধ্যে খাদ্য সংকট অন্যতম। অথচ শ্রীলংকা একদশক আগেও চাল উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ন ছিল, চা উৎপাদনে ও রপ্তানীতে দক্ষিন এশিয়াতে শীর্ষে অবস্থান ছিল। আজ দেশটির খাদ্য উৎপাদন শতকরা ২০ ভাগের চেয়েও বেশি কমে গেছে। খাদ্য সংকটের জন্য অপরিকল্পিত শতভাগ জৈব পদ্ধতিতে ফসল উৎপাদন ব্যবস্থার প্রবর্তনকে দায়ী করা হচ্ছে।

সমীরণ বিশ্বাস: ডগা ও ফল ছিদ্রকারী পোকা বেগুনের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। এটি কম বয়সী ডগাকে আক্রমণ করে। আক্রান্ত ডগা তাজা ভাব হারাতে থাকে। আক্রান্ত ডগার আকার নষ্ট হয়ে যায়। এমনকি আক্রান্ত বেগুন রান্না করলে এর স্বাদ হয় তেতো। মারাত্মক আক্রমণের ফলে পুরো গাছটিই মরে যেতে পারে। বেগুন গাছ লাগানোর পর থেকে বেগুন তোলা পর্যন্ত ডগা ও ফল ছিদ্রকারী পোকা গাছকে আক্রমণ করে। ডগা ও ফল ছিদ্রকারী পোকার বিভিন্ন স্থানীয় নাম রয়েছে। যেমন- আলমারা, ডগাভাঙা এবং ফল ছিদ্রকারী পোকা।

Written by: J. Stoops, , A. Patra, G. Van de Mierop and K. Van de Mierop
INTRODUCTION:
Arabinoxylans (AX), a non-starch polysaccharide (NSP) and poorly digestible plant cell wall component, is by far the most important anti-nutritional factor in raw materials such as wheat and corn. Due to its abundance, location in the plant material and molecular structure, AX reduces feed digestibility considerably.