Held in TUESDAY 15TH MARCH 2022
Agrilife24.com:BETTER PHARMA (International Animal Health Business) together with Prof. Dr. Thaweesak Songserm DVM, PhD. recently, an online virtual seminar was held to suit the situation in the very important topic How to fight with the right solution? "Poultry Diarrhea & Wet Dropping”. There are interested parties who attended at that time including at least 4 countries Bangladesh, Vietnam, The Philippines, Indonesia, and most of the participants were veterinarians, animal husbandries and nutritionists. In that time seminar, participants were given from the speaker's perspectives which can be summarized in a holistic way as follows:

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি প্রতিনিধি:দুই দশক ধরে গবেষণা করে ভেড়ার মাংসে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধকরণে সফলতা পেয়েছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) পশুপুষ্টি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল মামুন। ভেড়ার উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি ও গুনগত মান উন্নয়নের লক্ষ্যে গবেষণা করে এ সাফল্য পেয়েছেন তিনি। গবেষণায় ভেড়ার রক্তে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে ৭ শতাংশ।

ড.মুহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, পিএইচডি, জিএনইউ, দক্ষিণ কোরিয়া:ব্যাক্টেরিয়া কিংবা জীবাণুর নাম শুনলেই মানুষ আগে ভয় পেতো। এখন আর ভয় নয়, বন্ধু হিসেবে উপকারী ব্যাক্টেরিয়াকে গ্রহন করা যাবে। মানুষের সাথে যার মিল সবচেয়ে বেশি। ব্যাক্টেরিয়ার সাথে প্রাণীকুলের মধ্যে মানুষের সাথে সবচেয়ে বেশি মিল যা শতকরা ৩৭ ভাগ যেখানে বানরের সাথে মাত্র ৬ ভাগ।

সমীরণ বিশ্বাস:ডাবের পানি খাওয়ার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে শুধু গরমকাল নয়, সারা বছর যদি নিয়ম করে ডাবের পানি খাওয়া যায়, তাহলে একাধিক রোগ শরীরের ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। শুধু তাই নয়, ডাবের পানি উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যামাইনো অ্যাসিড, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ভিটামিন সি, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, মেঙ্গানিজ এবং জিঙ্ক নানাভাবে শরীরে গঠনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এসব উপাদানই আমাদের বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজন পরে।

ইমরুল কায়েস মির্জা কিরণ:কৃষি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) দেশের কৃষকদের নিকট কৃষি উপকরণের সহজপ্রাপ্যতা নিশ্চিতকল্পে এবং দেশের সেচ এলাকা সম্প্রসারণের কাজ ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে কাজ করে যাচ্ছে। ১৯৬১ সালে যাত্রা শুরু করা সুপ্রাচীন এ প্রতিষ্ঠানটি খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে উচ্চ ফলনশীল বিভিন্ন ফসলের বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও সরবরাহ বৃদ্ধি করা, সেচ প্রযুক্তি উন্নয়ন, ভূ-উপরিস্থ পানির সর্বোত্তম ব্যবহার, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, সেচ দক্ষতা ও সেচকৃত এলাকা বৃদ্ধি এবং কৃষক পর্যায়ে মানসম্পন্ন নন-নাইট্রোজেনাস সার সরবরাহ করে যাচ্ছে।

সমীরণ বিশ্বাস:ছোট্ট প্রায় গোলাকৃতি পাতা। নাম থানকুনি। খুব পরিচিত একটি ভেষজ গুণসম্পন্ন উদ্ভিদ। ল্যাটিন নাম । গ্রামাঞ্চলে থানকুনি পাতার ব্যবহার আদি আমল থেকেই চলে আসছে। এর মধ্যে রয়েছে ওষুধি সব গুণ। থানকুনি পাতার রস রোগ নিরাময়ে অতুলনীয়। রোগ নিরাময়ে থানকুনি যথার্থ ভ‚মিকা রাখতে সক্ষম। অঞ্চলভেদে থানকুনি পাতাকে আদামনি, তিতুরা, টেয়া, মানকি, থানকুনি, আদাগুনগুনি, ঢোলামানি, থুলকুড়ি, মানামানি, ধূলাবেগুন, নামে ডাকা হয়।