নাহিদ বিন রফিক (বরিশাল): জলমগ্ন জমি ভাসমান কৃষির জন্য সম্ভাবনাময়। এখানে বেড়ে ওঠা কচুরিপানাকে কাজে লাগিয়ে চাষের আওতায় আনা যায়। এসব স্থানে শাকসবজি, মসলাসহ অন্যান্য ফসল আবাদ করা সম্ভব। শুধু প্রয়োজন বেড তৈারি আর প্রযুক্তির ব্যবহার। এর মাধ্যমে পতিত জায়গাগুলো চাষের আওতায় আসবে। পাশাপাশি কৃষকের ভাগ্য পরিবর্তনও হবে। ফলে দেশের অর্থনীতিতে আসবে ইতিবাচক প্রভাব।

রাজধানী প্রতিনিধি: স্বাধীনতার পর খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা বাংলাদেশের অন্যতম সেরা অর্জন। তবে সাম্প্রতিক সময়ে অতি তাপমাত্রা,খরা, অকাল বন্যাসহ জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে নানান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে বাংলাদেশ। কৃষিক্ষেত্রে সেই চ্যালেঞ্জ আরও কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। কৃষি উন্নয়নে পানি, বিদ্যুৎ এবং বায়ু অত্যন্ত প্রয়োজনীয় উপাদান। জলবায়ু সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো যেমন পানি, বায়ু এবং কৃষি এবং পয়নি:ষ্কাশন সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠাননের সমন্বয় জরুরি। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় প্রতিষ্ঠানগুলোর সমন্বয় জরুরি।'

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম: দেশের কৃষি অর্থনীতিতে আলু একটি বড় জায়গা করে নিয়েছে। চলতি বছর ভালো বাজার মূল্য পাওয়ায় কৃষকরা ভাল জাতের আলু চাষে আগ্রহী হচ্ছেন। এক্ষেত্রে এসিআই সীডের ভ্যালেনসিয়া জাতের আলু বগুড়ার কৃষকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। এই জাতের আলু চাষ করে ভালো মুনাফা পাওয়ায় কৃষকদের মুখে হাসি ফুটেছে।

এগ্রিলাইফ প্রতিনিধি: দুধ ও মাংসের উৎপাদনশীলতা বাড়াতে জাত উন্নয়নের পাশাপাশি সঠিক খামার ব্যবস্থাপনা দরকার। এজন্য সমন্বিতভাবে কাজ করছে এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স এবং এসিআই এনিম্যাল হেলথ্ । দুধ ও মাংসের উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সঠিক নিয়মে কৃত্রিম প্রজননে যেমন উৎসাহিত করছে এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স ঠিক তেমনি গরুর রোগ প্রতিরোধে ভ্যাকসিন ও চিকিৎসা সেবা খামারীদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে এসিআই এনিম্যাল হেলথ্ ।

নাহিদ বিন রফিক (বরিশাল): পটুয়াখালী সদরে কৃষকের সাথে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার গাবুয়ায় কৃষকের বসতবাড়ির উঠানে কৃষি তথ্য সার্ভিসের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. নজরুল ইসলাম।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম: শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারী) গোপালগঞ্জ-এর বাটিকামারি সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত হল প্রোজেনী শো এবং বার্ষিক এলএ কনফারেন্স -২০২৪। এসিআই এনিমেল জেনেটিক্স আয়োজিত এ প্রোজেনী শো-তে ৪০০ জন খামারি এবং ৩০ টি ফ্রিজিয়ান ও ২০ টি শাহিওয়াল বাছুর প্রদর্শন করা হয়। এছাড়াও ডেয়রি খামার সংক্রান্ত নানা বিষয় নিয়ে খামারিদের সাথে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন বিশেষজ্ঞবৃন্দরা।