আশিষ তরফদার:সিরাজগঞ্জের জেলার শাহজাদপুরে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে রবি মৌসুমে ২০২১-২২অর্থ বছরে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে কৃষি প্রোণদনা কর্মসূচি আওতায় সরিষা, গম, ভুট্টা, মসুর খেসারী, সূর্যমুখী, চিনা বাদাম, মুগ, পেঁয়াজ, টমেটো, প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ কার্যক্রম উপজেলা পরিষদ চত্বরে বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হয়।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, “সরকারি দায়িত্ব পালনে উদ্ভাবনী চিন্তা-চেতনার বিকাশ ঘটাতে হবে। সততা, নিষ্ঠা ও পরিচ্ছন্নতার সাথে অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে হবে। দেশ সেবার ব্রত নিজের মধ্যে ধারণ করতে হবে। জনকল্যাণে কাজ করার দৃঢ় মানসিকতা ধারণে করতে হবে”।

সমসাময়িক ডেস্ক:চট্টগ্রাম প্রাকৃতিক সম্পর্কে পরিপূর্ণ হলেও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের হাত থেকে মুক্ত নয়। মানব সৃষ্ট ও প্রকৃতি সৃষ্ট বিপর্যয়ের অন্যতম ঝুঁকিতে আছে। যার কারণে জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবের দিক দিয়ে চট্টগ্রাম দেশের অন্যতম ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল। চট্টগ্রামে সাধারণ মানুষের অন্যতম পেশা কৃষি হলেও চট্টগ্রাম খাদ্যঘাটতি এলাকা। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে খাদ্য আমদানি করতে ঘাটতি পূরণ করতে হয়। সরকারের নানামুখী কর্মকাণ্ডে দেশে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হলেও খাদ্য-পুষ্টির জোগান এখনো নিশ্চিত হয়নি।

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:রাজনৈতিক দলে, রাষ্ট্রে ও ক্ষমতায় রাজনীতির পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের সামনে নিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

নাহিদ বিন রফিক (বরিশাল) বরিশালে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে ডাল ফসলের বর্তমান অবস্থা, গবেষণা পরিকল্পনা ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  আজ (শনিবার) রহমতপুরে আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে ডাল গবেষণা কেন্দ্রের উদ্যোগে এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়।  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার।  

এগ্রিলাইফ২৪ ডটকম:কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব বর্তমান সরকার ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্র্যাটেজিক প্ল্যান ও অ্যাকশন প্ল্যান প্রণয়ন, ৭০০ কোটি টাকার জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড গঠনসহ ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সেগুলোর বাস্তবায়ন সফলভাবে এগিয়ে চলেছে। কাজেই, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি মোকাবেলায় বিদেশি সাহায্য না আসলে, আমরা নিজস্ব অর্থেও তা মোকাবেলা করতে পারব। কারণ, বাংলাদেশ এখন আর বিদেশি সাহায্যের উপর নির্ভরশীল নয়।