সাড়ে তিন হাজার গবেষণা প্রকল্প সম্পন্ন করেছে বাউরেস

Category: কৃষিবিদ ও ক্যাম্পাস Written by agrilife24

আবুল বাশার মিরাজ, বাকৃবি প্রতিনিধি:বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের (বাউরেস) অধীনে গত ৩৮ বছরে ৩ হাজার  ৪৭৬ টি গবেষণা প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে প্রায় ৫৭১ টির অধিক গবেষণা প্রকল্প চালু রয়েছে। প্রতি বছর প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক কর্মশালায় চলমান এসব গবেষণা প্রকল্পসমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। এই পর্যন্ত সর্বমোট ১২৫৯ টি প্রকল্প সম্বলিত তিনটি বই প্রকাশিত হয়েছে।

বাউরেসের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব হস্তান্তরের প্রাক্কালে প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমের সার্বিক অগ্রগতি নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন বিদায়ী পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আবু হাদী নূর আলী খান। বৃহস্পতিবার (১২ মে) দুপুর ১২ টার দিকে বাউরেসের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, ২০১৯ সালের ১ নভেম্বর বাউরেসের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পান ড. মো. আবু হাদী নূর আলী খান। তাঁর অধীনে তিনটি বার্ষিক গবেষণা অগ্রগতি কর্মশালা আয়োজিত হয়েছে। এই সময়ে কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে কৃষি উৎপাদনে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ১১ জন কৃষককে প্রফেসর ড. আশরাফ আলী খান স্মৃতি কৃষি পুরষ্কার প্রদান করা হয়েছে। গবেষণায় বিশেষ অবদানের জন্য ৫০ জন শিক্ষককে ‘গ্লোবাল রিসার্চ ইমপ্যাক্ট রিকোগনাইজেশন অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হযেছে। বিগত দুই বছরে ৮ টি জার্নাল ইস্যু প্রকাশ করা হয়েছে। বাউরেস কর্তৃক প্রকাশিত জার্নালটি আধুনিকায়ন করে সম্পূর্ণরূপে অটোমেশন করা হয়েছে।

ড. মো. আবু হাদী নূর আলী খান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষককে গবেষণার আওতায় এনে গবেষণা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে যা বাউরেসের ইতিহাসে প্রথম। প্রায় ১ কোটি টাকা ঘাটতি নিয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর সকল ঘাটতি কাটিয়ে বর্তমানে সকল গবেষণা প্রকল্পের অধীনে প্রায় ৯ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও আগামী জুলাইয়ে এটির বরাদ্দ ১১ কোটি টাকায় উন্নীত করার চেষ্টা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এর মধ্যে শুধু প্রভাষক ও সহকারী অধ্যাপকদের জন্য এই বছরের জানুয়ারি থেকে ৪৬টি গবেষণা প্রকল্পের জন্য প্রায় ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গবেষণা প্রকল্পের ফলাফল প্রকাশনাকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য বাউরেসের আওতাধীন প্রতিটি প্রকল্র জন্য গবেষককে ক্ষেত্রবিশেষে ১০০ ডলার থেকে ১ হাজার ডলার মূল্যের অর্থ প্রদান করা হচ্ছে। গত দুই বছরে গবেষণা প্রকল্পের অধীনে ২৬৮ জন এমএস (মাস্টার্স) ফেলোকে প্রতি মাসে পাঁচ হাজার টাকা হারে মোট ২ কোটি ৭০ লাখ টাকা ফেলোশিপ প্রদান করা হয়েছে। অর্থ সহায়তা বৃদ্ধির ফলে ২০২১ সালে বাকৃবি গবেষকগণ ৫৫৮ টি গবেষণা প্রকল্প স্কোপাস জার্নালে প্রকাশ করেছেন, যা পূর্বের বছরের তুলনায় দ্বিগুণ। বাউরেসে বর্তমানে বার্ষিক প্রায় ৩৫ কোটি টাকার গবেষণা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। ইউজিসি থেকে বিশেষ বরাদ্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাজেট, দেশীয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা থেকে এই অর্থ আসে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাউরেসের সহযোগী পরিচালক অধ্যাপক ড. এ কে. এম. মমিনুল ইসলাম, সিনিয়র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. পরেশ কুমার শর্মা এবং বাকৃবি জনসংযোগ ও প্রকাশনা দফতরের উপ পরিচালক দীন মোহাম্মদ দীনু।